দশ বছর নিষিদ্ধ পাকিস্তানের জামশেদ

বর্তমান সময়ে ক্রিকেটে স্পট ফিক্সিং প্রকট আকার ধারণ করেছে। একের পর এক শাস্তি দিয়েও তা থামানো যাচ্ছে না। ম্যাচ ফিক্সিংয়ের কথা উঠলেই নাম আসে পাকিস্তানের। কারণ ফিক্সিংয়ের আঁতুড় ঘর হিসেবে পরিচিত তারা। 

বিভিন্ন সময়ে অনেককে ফিক্সিংয়ের দায়ে শাস্তি দিলেও এবার খেলোয়াড়দের বিরুদ্ধে শক্ত অবস্থান নিয়েছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)।

তারই অংশ হিসেবে স্পট ফিক্সিং তথা ম্যাচ গড়াপেটার ঘটনার দায়ে পাকিস্তানি ব্যাটসম্যান নাসির জামশেদকে সব ধরনের ক্রিকেট থেকে দশ বছরের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়েছে। গত বছর ডিসেম্বরে পিএসএলে (পাকিস্তান সুপার লিগ) স্পট-ফিক্সিং মামলায় অভিযুক্ত হন এই ব্যাটসম্যান।

এর আগে গত বছর ১ বছরের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়েছিল জামশেদকে। যার মেয়াদ এ বছরের এপ্রিলে শেষও হয়ে গিয়েছিল।

২০১৬-১৭ মৌসুমে পিএসএলে স্পট ফিক্সিংয়ে কয়েকজন ক্রিকেটারকে অভিযুক্ত করা হয়। যাদের মধ্যে শাহজাইব হাসানকে গত শুক্রবার ৪ বছরের নিষেধাজ্ঞা দেয় পিসিবি। তার এক সপ্তাহের মাথায় দশ বছরের শাস্তি পেলেন জামশেদ। শাহজাইব ও জামশেদ ছাড়াও একই ঘটনায় বিভিন্ন মেয়াদে নিষেধাজ্ঞা ভোগ করছেন শারজিল খান, খালিদ লতিফ, মোহাম্মদ ইরফান ও মোহাম্মদ নওয়াজ।

চলতি বছর এপ্রিল মাসে জামশেদের উপর আসা অভিযোগ অস্বীকার করেছিলেন জামশেদ। যার কারণে পিসিবি চেয়ারম্যান তিন সদস্যের একটি অ্যান্টি করাপশন ট্রাইবুনাল গঠন করেন।

পিসিবি তার বিরুদ্ধে সাতটি পাঁচটি মামলা দায়ের করে। পরে শুক্রবার এক সংক্ষিপ্ত রায়ের মধ্য দিয়ে দশ বছরের জন্য ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ করা হয় এই ক্রিকেটারকে।

পাকিস্তানের হয়ে ২টি টেস্ট, ৪৮টি ওয়ানডে ১৮টি টি-টুয়েন্টি খেলেছেন ২৮ বছর বয়সী এই ওপেনার। কোন সংস্করণেই উল্লেখযোগ্য পারফরম্যান্স করতে পারেননি তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *